ফনেটিক ইউনিজয়
নির্বাচনকে ঘিরে ব্যস্ত ছাপাখানার শ্রমিকরা
ইলিয়াস আহমেদ, ময়মনসিংহ

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রার্থীদের পোস্টার ছাপাতে এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন ময়মনসিংহের ছাপাখানার শ্রমিকরা। প্রতীক বরাদ্দের পর মাঠে ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রার্থীরাও। প্রার্থীরা তাঁদের ছবি ও প্রতীক-সংবলিত পোস্টার, ব্যানার আর ফেস্টুন টাঙাচ্ছেন জেলাজুড়ে। জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ময়মনসিংহে ১১ টি আসনে ৫৭ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।
জানা যায়, সম্ভাব্য প্রার্থীরা আগে থেকেই বেশির ভাগ প্রচারসামগ্রী প্রস্তুত করে রেখেছিলেন। এখন স্বতন্ত্র প্রার্থীরা নির্বাচনী প্রচারসামগ্রী প্রস্তুতিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। তবে অনেক ছাপাখানা মালিকের অভিযোগ প্রার্থীরা টাকা-পয়সা নিয়ে ছয়-নয় করায় তারা পোস্টার, ব্যানার আর ফেস্টুন তৈরিতে আগ্রহ হারাচ্ছেন।
গ্রাফিকস বাংলা ডিজাইনের মালিক সাখাওয়াত উল্লাহ মহব্বত বলেন, ময়মনসিংহ জেলার পাশাপাশি নেত্রকোনা, জামালপুর এবং শেরপুরের প্রার্থীরা তাঁদের কাছে পোস্টার ও লিফলেট বানাতে আসছেন। এগুলো তৈরি করতে দিন-রাত কাজ করছেন মুদ্রণ শ্রমিকেরা। নির্বাচন উপলক্ষে তাঁর কারখানায় বাড়তি শ্রমিক আনা হয়েছে। তারপরও অর্ডার শেষ করা যাচ্ছে না। তবে বেশির ভাগ কাজে টাকা বকেয়া থাকায় তা উত্তোলন নিয়ে সংশয় কাটছে না।
আলী প্রিন্টার্সের মালিক ইউসুফ আলী বলেন, নির্বাচন এলে কাজের প্রতি আমাদের উৎসাহ বেড়ে যায়। কিন্তু প্রার্থীরা সরাসরি আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ না করায় দালালদের মাধ্যমে কাজ করতে হয়। অনেক সময় আমাদের কাজের মূল্যও সঠিকভাবে পাই না। গত ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে পোস্টার টাকা এখনও তুলতে পারি নাই। তাই এবার দেখে শুনে অর্ডার রাখছি।
ময়মনসিংহ মুদ্রণ শিল্প মালিক সমিতির সহ-সভাপতি ইয়াজদানী কোরায়শী কাজল বলেন, ঝিমিয়ে পড়া ছাপা ব্যবসা এ নির্বাচনকে ঘিরে জমজমাট হয়েছে। তাই ৬৫ টির মতো ছাপাখানা সবাই দিন-রাত কাজ করে প্রার্থীদের প্রচার সরঞ্জাম পৌঁছে দিতে সাধ্যমতো চেষ্টা করছেন। নির্বাচনকে ঘিরে অতিরিক্ত অর্থ উপার্জন করতে পেরে উচ্ছ্বসিত এখানকার প্রায় ৫ শতাধিক শ্রমিক।

Disconnect