ফনেটিক ইউনিজয়
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাহিত্যের ছোটকাগজ
হুইসেল

হুইসেল: চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রকাশিত একটি ত্রৈমাসিক লিটল ম্যাগাজিন। নামটি নেয়া হয়েছে  বিশ্ববিদ্যালয়ের ঐতিহ্য, শাটল ট্রেনের কথা ভেবে। “ছিপছিপে কবিতার ছন্দে ভাষায় / গদ্যের যুক্তিতে বাঁচার আশায়” প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ক্যাম্পাসের জীবনানন্দ চত্বরে এক ঘরোয়া আড্ডার মাধ্যমে আত্মপ্রকাশ। সেই আড্ডার শিরোমণি ছিলেন কবি ময়ূখ চৌধুরী। তিনি তাঁর ‘প্রতীতি’ ম্যাগাজিন সম্পাদনার অভিজ্ঞতা নিয়ে গল্প করলেন তরুণদের সাথে। কথা বললেন কবিতা নিয়ে, ‘লিটলম্যাগ আন্দোলন’ নিয়ে।
প্রথম সংখ্যাটি সমৃদ্ধ হয়েছে চবি’র প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের লেখায়। বর্তমানে সাহিত্য-অঙ্গনে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পদচারণার একটা চিত্র পাওয়া যেতে পারে এই সংখ্যাটি থেকে। ‘মাইকের কান্নায় ঘুমিয়ে পড়ে ষোলশহরের ফুটপাত’,  ‘টগবগ করতে করতে বন্ধুসভা কর্ণফুলীতে সাম্পান ভাসায়’,  কিংবা ‘কাম’ গল্পের ‘এক মঙ্গলবার আমরা ক্লাসে না গিয়ে কাপ্তাই লেক গেলাম’, এসব বাক্য পড়তে গিয়ে চট্টগ্রাম অঞ্চলের একটা আবহও পাওয়া যাবে এখানে। চবি চারুকলার প্রাক্তন ছাত্র নির্ঝর নৈঃশব্দ্য’র কবিতায় যখন কেউ পড়তে থাকবে ‘অনেক দিন আগের কথা- তখন আমি বনের বিদ্যালয়ে ছবি আঁকা শিখতাম। বিদ্যালয়ে যেতে বাঁপাশে আকাশগামী মিনার। তার চূড়ায় একটা আনারস পাতার করাতে বসে আকাশকে পরিহাস করতো’ তখন তার মনে যে চিত্রটা ফুটে উঠবে, সেটা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের।
এই সংখ্যায় বাংলাদেশের প্রখ্যাত অনুবাদক, চবি ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক জি এইচ হাবীবের অনুবাদে ম্যাক্সিকান লেখক হুয়ান হোসে অ্যারিওলার একটি ছোটগল্পের অনুবাদ আছে, এছাড়াও আছে  গ্যাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেজের ছোটগল্পের অনুবাদ। মৌলিক ছোটগল্প আছে ৪টি, কবিতা ১৩টি, ২টি ছড়া। আর জাক লাকাঁর ভাষাচিন্তা ও বুদ্ধদেব বসু সম্পাদিত ‘কবিতা’ পত্রিকা নিয়ে দুটি প্রবন্ধ।
হুইসেল -এর প্রথম সংখ্যাটি উৎসর্গ করা হয়েছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (চাকসু) -এর সাবেক সাধারণ সম্পাদক, শহীদ মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রবের গৌরবময় স্মৃতির উদ্দেশ্যে। ম্যাগাজিনটির সম্পাদনায় ছিল চবি’র ছয় শিক্ষার্থী তপু রায়হান, শাহ মোহাম্মদ শিহাব, তাবাসসূম ফাতেমা, শরীফুল আলম, সাইদুল ইসলাম ও দেওয়ান তাহমিদ। ৩২ পৃষ্ঠার সাদাকালো ম্যাগাজিনটির মূল্য কুড়ি টাকা। চট্টগ্রাম শহরের চেরাগি মোড়ের আর চবি ক্যাম্পাসের বইয়ের দোকানগুলোয় ম্যাগাজিনটি পাওয়া যাচ্ছে। কুরিয়ারে পেতে হলে যোগাযোগ করতে হবে হুইসেল-এর ফেসবুক পেইজে: www.facebook.com/huisel.mag. হুইসেল কেবল ম্যাগাজিন নয়, বরং একটি সাহিত্য সংগঠন হিসেবে কাজ করবে। নিয়মিত বিভিন্ন আয়োজন করা হবে। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ের এই বিরূপ সময়ে হুইসেল -এর মতো শুভ ও সুন্দর উদ্যোগ যেন অব্যহত থাকে, এটাই প্রত্যাশা।

Disconnect